মোহনগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধাদের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা ।। news10tv.com

বিশেষ প্রতিনিধি : এম এ মান্নান।

0 ৭০

 

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জের কৃতি সন্তান বাংলাদেশ বিমান পরিচালণা পর্ষদের চেয়ারম্যান ও ধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব সাজ্জাদুল হাসানকে কটুক্তি করে বক্তব্য দেওয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছেন স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা।
আজ বুধবার দুপুর ১২টার দিকে উপজেলা আ,লীগের সহ সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান রতনের বিরুদ্ধে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও সম্মিলিত নাগরিক সমাজের উদ্যোগে এ বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়।
দুপুর ১২ টার দিকে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে পৌর শহরের গুরুপুর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে মিছিলটি শহীদ উসমান আলী ময়দানে মুক্তিযোদ্ধা মুক্ত মঞ্চে গিয়ে এক প্রতিবাদ সভায় মিলিত হয়।
উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডর আব্দুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্টিত প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন, মুক্তিযোদ্ধা মীর্জা আব্দুল গণি, মুক্তিযোদ্ধা শামছুল হক মাহাবুব, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আহাম্মদ আলী চৌধুরী হীরা, নারী নেত্রী আকিকুন্নেছা বিউটি, তাহমিনা ছাত্তার, কবি রইছ মনরম, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের আহবায়ক হাবিবুর রহমান, যুগ্ম আহবায়ক আনোয়ার হোসেন, সদস্য সচিব ইয়াসির আরাফাত রনি প্রমূখ।
বক্তারা বলেন, সাজ্জাদুল হাসান শুধু মোহনগঞ্জ তথা নেত্রকোনার উন্নয়নের একজন প্রবাদ পূরুষই নন। তিনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। তাঁর বাবা ছিলেন মুক্তিযোদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও সাবেক গণ পরিষদ সদস্য প্রয়াত ডাক্তার আখলাকুল হোসাইন আহম্মেদ। শুধু তাই নয়, সাজ্জাদুল হাসান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার অত্যন্ত বিশ্বস্ত ও আস্থাভাজন হওয়ার সুবাধেই আজ তাঁর হাত ধরে মোহনগঞ্জ তথা নেত্রকোনা জেলায় যে দৃশ্যমান উন্নয়ন হয়েছে তা আমরা কোনদিন কল্পনাও করিনি। কিন্তু সম্প্রতি উপজেলার বিজ্ঞান বাজারে এক সভায় জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান রতন আমাদের হাওরাঞ্চলের উন্নয়নের রুপকার ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সাজ্জাদুল হাসান সম্পর্কে যে ধরনের মিথ্যা, বানোয়াট ও কাল্পনিক বক্তব্য দিয়েছেন আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাচ্ছি। পাশাপাশি একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের বিরুদ্ধে এ ধরনের মিথ্যা ও বানোয়াট বক্তব্য প্রত্যাহার করাসহ আব্দুল হান্নান রতন যদি প্রকাশ্যে ক্ষমা না চান তাহলে তার বিরুদ্ধে আরো বৃহত্তর আন্দোলণ কর্মসুচি ঘোষনা করবেন বলেও হুমকি দেন বক্তারা।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.