বর্তমান প্রেক্ষাপটে সরকারি চাকুরীতে প্রবেশের বয়স ৩৫ বছর এর যৌক্তিকতাঃNews10tv.com

স্টাফ রিপোর্টার : মোঃ রাকিবুল হাসান

0 ১৬৭

 

স্নাতোকোত্তর পাশ করতে বাংলাদেশে একজন শিক্ষার্থীর সময় লাগে প্রায় ২৭ থেকে ২৮ বছর। সরকারি চাকুরীতে প্রবেশের বয়স ৩০ বছর হওয়ার ফলে সরকারি চাকুরীতে আবেদনের সময় পান একজন শিক্ষার্থী মাত্র ২/৩ বছর । এমন অবস্থা কোন শিক্ষার্থীই মেনে নিতে চাননা । দেশে প্রাকৃতিক দুর্যোগ সহ নানা কারণে সেশনজটের ফলে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা ক্ষেত্রে অনেক সময় নষ্ট হয় ফলে সরকারি চাকুরী পাওয়ার ক্ষেত্রে ২/৩ বছর সময় একজন শিক্ষার্থীর নিকট খুবই অল্প সময়।

পৃথিবীর প্রায় ১৬২ টি স্বাধীন দেশে সরকারি চাকুরীতে প্রবেশের বয়স ৩৫-৫৯ বছর । বাংলাদেশে ১৯৯১ সালে সরকারি চাকুরীতে প্রবেশের বয়স ২৭ থেকে ৩০ বছর বৃদ্ধি করা হয় । দীর্ঘ প্রায় আড়াই যুগের বেশি সময় অতিবাহিত হলেও চাকুরীতে প্রবেশের বয়স বৃদ্ধি করা হয়নি ।

বিভিন্ন দেশে চাকুরীতে প্রবেশের বয়স যেমন, কানাডায়-৫৯, সুইডেনে-৪৭, যুক্তরাষ্ট্রে-৫৯, ভারতের পশ্চিম বঙ্গে-৪০, শ্রীলঙ্গাতে-৪৫, ফ্রান্সে-৪০, কাতারে-৩৫, ইতালিতে-৩৫, ইন্দোনেশিয়াতে-৪৫ এবং এঙ্গোলাতে -৪৫ বছর। তাহলে বাংলাদেশে সরকারী চাকুরীতে প্রবেশের বয়স ৩৫ বছর হবে না কেন?

উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত যুব সমাজ হচ্ছে আমাদের দেশের মূল্যবান সম্পদ । এই যুব সমাজ কে কাজে লাগিয়ে দেশে ও জাতির উন্নয়ন করা সম্ভব । যদি শিক্ষিত যুব সমাজকে সঠিক ভাবে কাজে না লাগানো যায় তাহলে এই যুব সমাজ বিপদগামী হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাও অনেকাংশে থেকে যায় ।

দেশের লক্ষ লক্ষ বেকার যুবকদের ভবিষৎ জীবনের কথা চিন্তা করে এবং করোনা কালিন এমন সময়ে সরকারি চাকুরীতে প্রবেশের বয়স ৩৫ বছর করবেন সরকারের প্রতি যুব সমাজ এমনটা আশা করছেন । বর্তমান প্রেক্ষাপটে ৩৫ বছরই সরকারী চাকুরীতে প্রবেশের সঠিক ও সর্ব মহলের নিকট গ্রহন যোগ্য সময়সীমা ।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.