আশুলিয়ায় তাজরীন ট্রাজেডির ৮ বছর ; ক্ষতিপূরণ ও পূনর্বাসনের দাবী নেতৃবৃন্দের ।। news10tv.com

স্টাফ রিপোর্টার : মুন্সী মেহেদী হাসান ।

0 ১০৩

 

ভয়াবহ তাজরিন ট্রাজেডির ৮ বছর আজ। ২০১২ সালের এই দিনে আশুলিয়ার নিশ্চিন্তপুরে তাজরীন ফ্যাশনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আগুনে পুড়ে ১১৩ জন পোশাক শ্রমিকের মৃত্যু হয়। ঘটনায় আহত হন অনেকেই। আহত ও নিহতদের বেশিরভাগ শ্রমিকই ছিল নারী পোশাক শ্রমিক।

দিনটি উপলক্ষে মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) সকাল ৭টা থেকে প্রতিষ্ঠানটির সামনে জড়ো হতে থাকেন দুর্ঘটনায় আহত শ্রমিক, নিহতদের স্বজন ও বিভিন্ন শ্রমিক ও মানবাধিকার সংগঠন। পরে নিহতদের স্মরণে তাজরীনের প্রধান ফটকের সামনে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন।

এসময় বাংলাদেশ তৃণমূল গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আলমগীর শেখ লালন বলেন, তাজরীন ফ্যাশনের মালিকসহ জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। সেই সাথে হতাহতদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ এবং আহতদের যথাযথ পূনর্বাসনের দাবিসহ
তাজরীন ফ্যাশনের জায়গায় একটি হাসপাতাল নির্মাণ করে আহতদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত নতুবা শ্রমিকদের বসবাসের জন্য একটি আবাসন কেন্দ্র (ডরমিটরি) নির্মাণের দাবি জানান।

ইউনাইটেড ফেডারেশন অব গার্মেন্টস ওয়ার্কার্স এর সাভার আশুলিয়া কমিটির সভাপতি মো: ইমন শিকদার বলেন, “দুর্ঘটনার ৮ বছর পার হলেও ভুক্তভোগীর পরিবার প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ক্ষতিপূরণ পায়নি। এমনকি এ ঘটনায় জড়িতদের বিচার ত্বরান্বিত করা হয়নি।”

কারখানাটিতে আগুন লাগার সময় সামনের গেইট দিয়ে বের হয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন শ্রমিকরা। কিন্তু কারখানা কর্তৃপক্ষ বাইরে থেকে গেইটটিতে তালা দেওয়ায় ভেতরেই আটকা পড়েন শ্রমিকের একাংশ। প্রাণে বাঁচতে সেদিন অনেককেই কারখানা থেকে লাফ দিতে হয়েছিলো। কেউবা বাঁশের মাধ্যমে নেমে প্রাণে বাঁচতে চেয়েছিলো।
এই ঘটনায় হওয়া মামলায় কারখানা মালিক দেলোয়ার হোসেনসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। মামলায় দায়িত্বে অবহেলায় মৃত্যুর অভিযোগ আনা হয়েছে আসামিদের বিরুদ্ধে। আমরা তাজরীন ট্রাজেডির জন্য দায়ী সকলের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করার আহবান জানাচ্ছি। সেই সাথে তাজরীন ট্রাজেডিতে নিহত সকল শ্রমিক ভাই বোনদের রুহের মাগফেরাত কামনা করছি ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.